• মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৪ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ আশ্রয়ণের ঘর মানুষের জীবন বদলে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছে সাড়ে ১৮ হাজার পরিবার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন সোনিয়া গান্ধী মোদীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় হবে বাংলাদেশ ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানি করতে আগ্রহী : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-নরেন্দ্র মোদী সংক্ষিপ্ত শুভেচ্ছা বিনিময় অ্যাক্রেডিটেশন দেশের অর্থনীতিকে সুদৃঢ় করতে সহায়তা করে: রাষ্ট্রপতি

ফোন রিস্টার্ট নাকি পাওয়ার অফ কোনটি ভালো?

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৫ এপ্রিল ২০২৪  

ফোন নতুন অবস্থায় ব্যবহার করা খুবই আরামের। কিন্তু কিছুদিন যেতেই দেখা যায় ফোন স্লো হয়ে গেছে এবং আরও নানান সমস্যা। ফোনে এমন কিছু সমস্যা আসতে শুরু করে যার কারণে ফোন হ্যাং হয়ে যায়। এর সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা সঙ্গে সঙ্গে ডিভাইসটি বন্ধ করে দিই এবং আবার চালু করি, যাতে ফোনটি সঠিক ভাবে কাজ করা শুরু করে।

ফোনে আমাদের পাওয়ার অফ এবং রিস্টার্ট উভয় অপশন দেওয়া হয়। পাওয়ার বন্ধ করলে ফোনটি বন্ধ হয়ে যায় এবং এটি আবার অন করতে হয়। রিস্টার্ট করা হলে, ফোন স্বয়ংক্রিয় ভাবে বন্ধ এবং চালু হয়।

কিন্তু অনেকেই হয়তো ভেবে দেখেননি যে, দুটি অপশনের একই কাজ, তা সত্ত্বেও ফোনে এই দুটি অপশন দেওয়ার প্রয়োজন কী। প্রতি সপ্তাহে ফোন রিস্টার্ট করলে তা মেমোরি লিক প্রতিরোধেও সাহায্য করে। ব্যাটারি প্লাস দ্বারা প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, যখন একটি অ্যাপের কাজ করার জন্য প্রচুর পরিমাণে মেমোরির প্রয়োজন হয় তখন মেমোরি লিক হয়, কিন্তু অ্যাপ ব্যবহার না হলে মেমোরি লিক হয় না।

এক্ষেত্রে ফোন রিস্টার্ট করা কানেক্টিভিটি সমস্যায় সাহায্য করতে পারে। পুরনো স্মার্টফোনগুলো কখনো কখনো ডাটা এবং ওয়াই-ফাইয়ের সঙ্গে সংযোগ করতে অক্ষম হলে ফোন পুনরায় চালু করা যেতে পারে। ফোনের পাওয়ার অফ করলে এটি ক্যাশে ডাটা সাফ করতে সাহায্য করবে, যাতে আমাদের ফোন আরও দক্ষতার সঙ্গে কাজ করতে পারে।

ফোন বন্ধ এবং রিস্টার্ট করা ছাড়াও, আমাদের ফোনের ব্যাকগ্রাউন্ডে চলমান অ্যাপগুলো পরিষ্কার করা উচিত। এটি ফোন চলাকালীন ব্যাটারির স্বাস্থ্যের উপর চাপ সৃষ্টি করতে পারে।

ফোন সাধারণত তখনই রিস্টার্ট করা যখন ফোন হ্যাং হয়ে যায় বা অ্যাপগুলো সঠিকভাবে চলে না বা সফটওয়্যারের সমস্যা দেখা দেয়। তবে এটিও একটি ভালো অভ্যাস, এর কারণে ফোনটি মসৃণভাবে চলতে থাকে।