• বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৪ ১৪৩১

  • || ১১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ আশ্রয়ণের ঘর মানুষের জীবন বদলে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছে সাড়ে ১৮ হাজার পরিবার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন সোনিয়া গান্ধী মোদীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় হবে বাংলাদেশ ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানি করতে আগ্রহী : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-নরেন্দ্র মোদী সংক্ষিপ্ত শুভেচ্ছা বিনিময় অ্যাক্রেডিটেশন দেশের অর্থনীতিকে সুদৃঢ় করতে সহায়তা করে: রাষ্ট্রপতি

কনকনে শীতে ঝকঝকে কাঞ্চনজঙ্ঘা, ঘুরে আসুন ধোত্রে

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২২ জানুয়ারি ২০২৪  

শেষ হয়ে যাচ্ছে ডিসেম্বর মাসও। বড়দিন, নতুন বছরের ছুটি পড়তে আর বেশিদিন নেই। ছুটিটা কোথায় কাটাবেন ভাবছেন? পাসপোর্টে ভারতের ট্যুরিস্ট ভিসা থাকলে চোখ বন্ধ করে চলে যান ধোত্রে। না এটা নেহাতই কথার কথা। ধোত্রেতে গিয়ে চোখ বন্ধ করে রাখা যায় না। প্রকৃতি যে এত সুন্দর, কাঞ্চনজঙ্ঘা যে এত সুন্দরী, পাহাড়ের মানুষ যে এত সরল তা বোধ হয় ধোত্রে না এলে জানাই যেত না।
পাহাড়ের কোলে, নির্জন নিরিবিলিতে শান্ত গ্রাম ধোত্রে। একাধিক হোম স্টে গড়ে উঠেছে। দিন কয়েক থেকে যান সেখানেই। হোমস্টের জানালা খুললেই কাঞ্চনজঙ্ঘা। আর ভাগ্য ভালো থাকলে বছর শেষে বরফের দেখাও পেতে পারেন। তবে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি কাঞ্চনজঙ্ঘাও বেশ স্পষ্ট। ক্ষণে ক্ষণে বদলায় পাহাড়ের রূপ। আর ধোত্রে থেকে দেখুন কেমন ভোর থেকে বেলা পর্যন্ত বদলে যাচ্ছে কাঞ্চনজঙ্ঘা।

প্রায় সাড়ে আট হাজার ফুট উচ্চতায় এই সুন্দর গ্রাম। কাছেই পাইন গাছের ঘন জঙ্গল। অজস্র নাম না জানা পাখির সমাহার। মন একেবারে অন্যরকম করে দেবে। সেই সঙ্গেই যেদিকে দু-চোখ যায় শুধুই সবুজ আর সবুজ। এখান থেকেই সান্দাকফু ট্রেক করেন অনেকে।কাছেই টুমলিংও আছে। এখান থেকে ট্রেকিং করে টুমলিং ঘুরে আসতে পারেন। পাহাড়ি পথে বেশ ভালো লাগবে।

তবে শীতের সকালে-রাতে তাপমাত্রা প্রায় ২ ডিগ্রি নেমে আসছে। সেক্ষেত্রে শরীর গরম রাখার উপযোগী গরম জামাকাপড় নিয়ে যেতে ভুলবেন না। কয়েকদিন আগেই টুমলিংয়ে বরফ পড়েছিল। ধোত্রেতেও বছরের শেষে বরফের দেখা পেতে পারেন। আর ভাগ্য ভালো থাকলে রেড পান্ডার দেখাও পেতে পারেন এখানেই।

এনজেপি থেকে ধোত্রে প্রায় ১০০ কিমি। এনজেপি বা বাগডোগরা থেকে সরাসরি গাড়ি ভাড়া করে ধোত্রে যেতে পারেন। তবে সস্তায় ধোত্রে পর্যন্ত যেতে চাইলে দার্জিলিং মোড় থেকে শেয়ার গাড়িতে যান। ৬০০ টাকাতেই ধোত্রে চলে যেতে পারবেন। একটু ঠেসাঠেসি হবে। শীতের দিনে খারাপ লাগবে না। মানেভঞ্জন থেকে প্রায় ১৪ কিমি আর টুমলিং থেকে ৬ কিমি দূরে এই ধোত্রে। শীতের বেড়ানোর জন্য় উপযুক্ত জায়গায় এই ধোত্রে।