• সোমবার   ২৭ মার্চ ২০২৩ ||

  • চৈত্র ১৩ ১৪২৯

  • || ০৪ রমজান ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
বাইরে নালিশ করা, কান্নাকাটি করা বিএনপির চরিত্র: শেখ হাসিনা স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছায় বাইডেন বললেন ‘জয় বাংলা’ ‘জিয়াউর রহমান নির্বিচারে হাজার হাজার মানুষ হত্যা করেছেন’ অস্বাভাবিক সরকার ক্ষমতায় থাকলে কিছু লোকের কদর বাড়ে: প্রধানমন্ত্রী বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল পরিচালনা ও হ্যান্ডলিং করতে চায় জাপান মুক্তিযুদ্ধে আত্মত্যাগের ঋণ কখনো শোধ হবে না: প্রধানমন্ত্রী পাক হানাদাররা নিরস্ত্র বাঙালির ওপর অতর্কিত আক্রমণ চালায় স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সংবর্ধনা গণহত্যা দিবসের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা স্বাধীনতা দিবসে যেসব কর্মসূচি নিয়েছে সরকার আমরা যুদ্ধ-সংঘাত চাই না: প্রধানমন্ত্রী গণহত্যা দিবসের স্বীকৃতি আদায়ে সবাইকে ভূমিকা রাখতে হবে ২৫ মার্চ ১৯৭১: রক্ত আর আর্তচিৎকারের ভয়াল রাত যে কোনো অর্জনেই ত্যাগ স্বীকার করতে হয়: প্রধানমন্ত্রী গুণীজনদের হাতে স্বাধীনতা পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত আছে বলেই আজকের উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে স্বাধীনতা পুরস্কার প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে প্লেন চলাচলের কেন্দ্রে পরিণত করতে রোডম্যাপ জরুরি জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকার কাজ করে যাচ্ছে

ইউক্রেনকে আল্টিমেটাম রাশিয়ার

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৭ ডিসেম্বর ২০২২  

ইউক্রেনকে মস্কোর দেওয়া প্রস্তাব মেনে নেওয়ার আল্টিমেটাম দিয়েছে রাশিয়া। সোমবার রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ এই আল্টিমেটাম দেন। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

সের্গেই ল্যাভরভ বলেন, কিয়েভকে মস্কোর প্রস্তাবগুলো মেনে নিতে হবে, যার মধ্যে রুশ নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলগুলোতে ইউক্রেনীয় বাহিনীর পরাজয় স্বীকারের বিষয়টিও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। অন্যথায় রাশিয়ার সেনাবাহিনী এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে।

তার ভাষায়, ‘বিষয়টি সহজ। আপনার নিজের ভালোর জন্য প্রস্তাবগুলো মেনে নিন। অন্যথায় রুশ বাহিনী তার সিদ্ধান্ত নেবে।’

ইউক্রেন ইস্যুতে আলোচনায় প্রস্তুত রাশিয়া। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের এমন মন্তব্যের একদিনের মাথায় সোমবার এমন আল্টিমেটামের কথা জানান ল্যাভরভ।

রবিবার পুতিন বলেছিলেন, ‘আমরা গ্রহণযোগ্য সমাধানের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রত্যেকের সঙ্গে আলোচনা করতে প্রস্তুত। কিন্তু এটি তাদের ওপর নির্ভর করছে। আমাদের দিক থেকে আলোচনা প্রত্যাখ্যান করা হচ্ছে না, এটা তাদের দিক থেকেই করা হচ্ছে।’

এদিকে ইউক্রেনের মাটি থেকে রুশ বাহিনী প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছে কিয়েভ। একইসঙ্গে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্যপদ থেকে রাশিয়ার অপসারণও দাবি করেছে তারা। ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবা বলেছেন, ‘রাশিয়ার কী নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য থাকার এবং আদৌ জাতিসংঘে থাকার অধিকার আছে? আমাদের কাছে এটির একটি বিশ্বাসযোগ্য ও যুক্তিযুক্ত উত্তর আছে। না! এই অধিকার তাদের নেই!’