• শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯

  • || ১৩ মুহররম ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর বিষয়ে পরিষ্কার ব্যাখ্যার নির্দেশ বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত মানবাধিকার কমিশনকে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির ৪০০তম ওয়ানডে খেলার অপেক্ষায় বাংলাদেশ জ্বালানি নিরাপত্তা: বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার অবদান রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে বঙ্গমাতার মনোভাব প্রতিফলিত হয়েছে বঙ্গমাতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা স্বাধীনতার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর সারথি ছিলেন আমার মা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গমাতা কঠিন দিনগুলোতে ছিলেন দৃঢ় ও অবিচল: রাষ্ট্রপতি ফজিলাতুন নেছা মুজিব দৃঢ়চেতা-বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ বাংলাদেশে সহায়তা অব্যাহত রাখবে চীন: ওয়াং ই চীনে ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে বাংলাদেশ মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছি মায়ের দুধ শিশুর সর্বোত্তম খাবার: রাষ্ট্রপতি শেখ কামাল ছিলেন বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী: প্রধানমন্ত্রী শেখ কামাল ছিলেন ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনা সুকুমার মনোবৃত্তির মানুষ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দেশের মর্যাদাকে সমুন্নত করবে যুবসমাজ ‘শেখ হাসিনার কাছ থেকে শিখুন’ ঘাতকরা আজও তৎপর, আমাকে ও আ’লীগকে সরাতে চায়: প্রধানমন্ত্রী

মানুষ ভাবত পুলিশ, পুলিশ ভাবত দুদক কর্তা!

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০২১  

সবার কাছে তিনি পরিচিত পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে। সবাই যেন বিশ্বাস করে এজন্য পুলিশের ইউনিফর্মে নিয়মিত ফেসবুকে ছবিও দিতেন। কখনও বন্দুক হাতে, কখনও ওয়াকিটকি হাতে ছবি তুলেছেন নিজেকে পুলিশ প্রমাণের জন্য। আবার পুলিশের কাছে তিনি পরিচিত দুদক কর্মচারী হিসেবেই। কেউবা আবার চেনেন এনএসআই কর্মচারী হিসেবেও। 

কিন্তু এসবের কোনোটিই ঠিক নয়। আসলে তিনি একজন বড় মাপের ‘প্রতারক’। প্রতারণার অভিযোগে অবশেষে ধরা খেলেন পুলিশেরই জালে। শুক্রবার (১২ নভেম্বর) বিকেলে চুয়াডাঙ্গা বড় বাজার থেকে এই প্রতারককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন বলেই জানিয়েছে পুলিশ। 

গ্রেপ্তারকৃত ওই প্রতারকের নাম তৌহিদ হোসেন। তিনি চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গাইদঘাট গ্রামের মিল্টন হোসেনের ছেলে। তৌহিদের বিরুদ্ধে এক নারী প্রতারণার অভিযোগে মামলা করেছেন। পুলিশ বাদী হয়ে আরেকটি মামলা করেছে।

জানা গেছে, তৌহিদ হোসেন দীর্ঘদিন ধরেই নিজেকে পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে আসছিলেন। এই পরিচয় দিয়ে তিনি মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন বিপুল পরিমাণ অর্থ। জিজ্ঞাসাবাদে তৌহিদ হোসেন জানান, এক নারীকে চুয়াডাঙ্গা থানার পুলিশ বলে পরিচয় দেন তিনি। তাকে বিশ্বাস করানোর জন্যই থানার সামনে ঘোরাফেরা করছিলেন।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ‘তৌহিদ হোসেন নিজেকে কখনো পুলিশ, কখনো এনএসআই হিসেবে পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে থাকেন। প্রতারণার সুবিধার জন্য তিনি ফেসবুকে এসব ছবি ব্যবহার করেন। বিভিন্ন বাহিনীর সদস্য সেজে মূলত টাকা হাতিয়ে নেয়াই ছিল তার কাজ। শনিবার তাকে চুয়াডাঙ্গা আদালতে সোপর্দ করা হবে।’