• শুক্রবার   ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২১ ১৪২৯

  • || ১১ রজব ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জনগণের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে আসিনি: প্রধানমন্ত্রী সবাইকে হিসাব করে চলার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়তে কৃষি উন্নয়নের বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী ক্রীড়া শিক্ষায় বাস্তবমুখী পদক্ষেপ নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী জনস্বাস্থ্য নিশ্চিতে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্যের বিকল্প নেই জনগণকে বিশ্বাস করি, তারা যদি চায় আমরা থাকবো: প্রধানমন্ত্রী ২০২২-২৩ অর্থবছরে ১০ বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স এসেছে ভাষা-সাহিত্য চর্চাও ডিজিটাল করার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ মানহীন শিক্ষায় উচ্চশিক্ষিত বেকার বাড়ছে: রাষ্ট্রপতি গণতান্ত্রিক ধারাকে বাধাগ্রস্ত করতে চায় এক শ্রেণির বুদ্ধিজীবী মুসলিম উম্মাহকে ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকলেই মানুষের উন্নতি হয়: প্রধানমন্ত্রী আমি জোর করে দেশে ফিরেছিলাম, আ.লীগ পালায় না: শেখ হাসিনা আজ ১১ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী ১-৭ মার্চ মোবাইলে কল করলেই শোনা যাবে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ পুলিশি সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিন: প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাস রুখে দিতে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে যাচ্ছে পুলিশ

বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ সচল হয়েছে খেরসনে

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৫ ডিসেম্বর ২০২২  

গত সপ্তাহে ইউক্রেনের জ্বালানি ও বিদ্যুৎ অবকাঠামো লক্ষ্য করে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় রুশ সেনারা। হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় জরুরি সেবা সরবরাহ করা সংস্থাগুলো।
বিদ্যুৎহীন হয়ে পরে বেশি কিছু অঞ্চল। এগুলোর মধ্যে খেরসন শহরের বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ অনেকাংশে পুনরুদ্ধার করা হয়েছে।

দক্ষিণ ইউক্রেনের সম্প্রতি মুক্ত করা শহর খেরসনের কর্মকর্তারা বলছেন, রাশিয়ার হামলায় অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর দুটি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা অনেকাংশে পুনরুদ্ধার করা হয়েছে।

স্থানীয় কর্মকর্তাদের মতে, খেরসন শহরের বিদ্যুৎ সরবরাহ ৮৫ শতাংশ ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

প্রথমে শুক্রবার মোটামুটি তিন-চতুর্থাংশ বিদ্যুৎ ব্যবস্থা পুনরুদ্ধার করা হয়। কিন্তু পরে রাশিয়ান গোলাগুলির কারণে শহরটি আবারও সম্পূর্ণরূপে বিদ্যুৎ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছিল।

এরপর শনিবারের মধ্যে, শহরে ৭৫ শতাংশ বিদ্যুৎ পুনরুদ্ধার করা হয়েছিল। যা বর্তমানে আরও উন্নতির দিকে আছে।

এছাড়া, শহরের ৭০ শতাংশ বাসিন্দাদের বাড়িতে পানি সরবরাহ ব্যবস্থা সচল করা হয়েছে।