• মঙ্গলবার   ০৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১০ মুহররম ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে বঙ্গমাতার মনোভাব প্রতিফলিত হয়েছে বঙ্গমাতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা স্বাধীনতার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর সারথি ছিলেন আমার মা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গমাতা কঠিন দিনগুলোতে ছিলেন দৃঢ় ও অবিচল: রাষ্ট্রপতি ফজিলাতুন নেছা মুজিব দৃঢ়চেতা-বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ বাংলাদেশে সহায়তা অব্যাহত রাখবে চীন: ওয়াং ই চীনে ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে বাংলাদেশ মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছি মায়ের দুধ শিশুর সর্বোত্তম খাবার: রাষ্ট্রপতি শেখ কামাল ছিলেন বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী: প্রধানমন্ত্রী শেখ কামাল ছিলেন ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনা সুকুমার মনোবৃত্তির মানুষ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দেশের মর্যাদাকে সমুন্নত করবে যুবসমাজ ‘শেখ হাসিনার কাছ থেকে শিখুন’ ঘাতকরা আজও তৎপর, আমাকে ও আ’লীগকে সরাতে চায়: প্রধানমন্ত্রী বিচারকদের সততা-নিষ্ঠা নিয়ে দায়িত্ব পালন করতে হবে: রাষ্ট্রপতি একনেকে ২ হাজার কোটি টাকার ৭ প্রকল্প অনুমোদন বাঁধ টেকসই করতে বেশি করে ঝাউগাছ লাগানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ‘আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার’ পেলো বাংলাদেশ বিএনপির আমলে মানুষের ভোটের অধিকার ছিল না: প্রধানমন্ত্রী

যেসব কারণে নিয়মিত মসুর ডাল খাওয়া হতে পারে বিপজ্জনক!

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৪ জুলাই ২০২২  

বাঙালি সংস্কৃতিতে ডালের একটি আলাদা কদর রয়েছে। ভাতের সঙ্গে ডাল না খেলে অনেকেই খাওয়াকে খাওয়াই বলে মনে করেন না। কিন্তু নিয়মিত ডাল খেলে হতে পারে স্বাস্থ্যঝুঁকি, এমনটাই মনে করছেন পুষ্টিবিদরা। বিশেষ করে মসুর ডাল।

কোনো ডাল খাওয়া হোক বা না হোক, খাবার তালিকায় কিন্তু বেশির ভাগ মানুষই মসুর ডাল রাখতে পছন্দ করেন। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মসুর ডাল স্বাস্থ্যের জন্য নানাভাবে উপকারী হলেও বেশি পরিমাণে খাওয়ার অভ্যাস তা হিতে বিপরীত হতে পারে।

মসুর ডালে রয়েছে ভিটামিন, মিনারেল ও ফাইবার, যা শরীরের এলডিএল বা খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি কমাতে তাই পরিমিত মসুর ডাল নিয়মিত খাওয়ার অভ্যাস করা উচিত।

কিন্তু পুষ্টিকর এই খাবারটি বেশি পরিমাণে খাওয়া শুরু করলে তা স্বাস্থ্যের উন্নতি না করে অবনতির দিকে ঠেলে দেয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এই সময়ের একটি প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী আসুন জেনে নিই প্রয়োজনের চেয়ে বেশি পরিমাণে মসুর ডাল খেলে আমাদের শরীরে কোন কোন ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে।

১. হজমশক্তি হ্রাস: মসুর ডালে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে লেকটিন। এই উপাদান শরীরের হজমশক্তিকে দুর্বল করে তোলে। যদি কোনো ব্যক্তি আইবিএস-এর মতো রোগে ভুগে থাকেন, তাহলে মসুর ডাল খাওয়ার কারণে তার স্বাস্থ্য অবস্থার আরও অবনতি হতে পারে।

২. গাউট বা ইউরিক অ্যাসিডের ঝুঁকি: মসুর ডাল শরীরে গাউট বা ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ বাড়িয়ে তোলে। এ ছাড়া মসুর ডালে প্রচুর পরিমাণে পিউরিন থাকে, যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। তাই কোনো ব্যক্তি যদি বাতের ব্যথায় ভোগেন, তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়ে তার মসুর ডাল ও মটরশুঁটি খাওয়া মোটেও উচিত হবে না।

৩. অবসেটি বা ওজন বৃদ্ধি: মসুর ডালে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে। তাই ডায়েট লিস্টে এই খাবার তালিকাভুক্ত করলে শরীরের ওজন দ্রুত বৃদ্ধি পায়। শারীরিক ব্যায়ামের অভাব হলে অতিরিক্ত প্রোটিন শরীরে ফ্যাট হিসেবে জমতে শুরু করে। এতে ওজন বেড়ে যাওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পায়।

৪. পেটে গ্যাস: বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, প্রয়োজনের তুলনায় বেশি পরিমাণে ডাল খেলে পেটে গ্যাসের সমস্যা তৈরি হতে পারে। প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকায় এই খাবার গ্যাসের সমস্যা তৈরি করার  পাশাপাশি তৈরি করে অ্যাসিডিটির সমস্যাও।

৫. কিডনির সমস্যা: জেনে অবাক হলেও এটিই সত্যি। আপনি যদি প্রচুর পরিমাণে ডাল খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলেন, তবে এটি আপনার কিডনির ওপর সরাসরি ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। এ ছাড়া মসুর ডালে অক্সালেটের পরিমাণ বেশি হওয়ায় এই খাবার বেশি পরিমাণে খেলে কিডনিতে পাথর তৈরি করে। তাই দৈনিক ৩০ থেকে ৬০ গ্রামের বেশি মসুর ডাল খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।