• রোববার   ২২ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
রূপপুর মেটাবে বিদ্যুতের চাহিদা, দেবে লাভও দ্রব্যমূল্য নিয়ে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর ৪ দফা প্রস্তাব অবিলম্বে বৈশ্বিক সরবরাহ চেইন স্বাভাবিক করার আহ্বান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিবেশবান্ধব: প্রধানমন্ত্রী খালেদাকে পদ্মায় ফেলতে আর ইউনূসকে চুবিয়ে তুলতে বললেন শেখ হাসিনা কক্সবাজার হবে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের রিফুয়েলিং পয়েন্ট কক্সবাজারে যত্রতত্র স্থাপনা নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে কউক’র নতুন ভবনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি আওয়ামী লীগ সরকার আছে বলেই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে- প্রধানমন্ত্রী ওপেনিংয়ে চতুর্থ সেরা জুটি গড়ে ফিরলেন জয়, তামিমের সেঞ্চুরি নিত্যপণ্যের দাম কেন চড়া, জানালেন প্রধানমন্ত্রী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন: শেখ হাসিনা দেশের মানুষের শেষ ভরসাস্থল শেখ হাসিনা বাঙালি জাতির নিরাপদ আশ্রয়স্থল শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ইতিহাসে মাইলফলক: রাষ্ট্রপতি চার দশকেরও বেশি সময় শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে আ.লীগ উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি খাদ্য সাশ্রয় করুন: প্রধানমন্ত্রী সবাই স্বাধীনভাবে সরকারের সমালোচনা করতে পারে: প্রধানমন্ত্রী টাকা অপচয় করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী

চরফ্যাশনে তরমুজের বাম্পার ফলন

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২২ মার্চ ২০২২  

চরফ্যাশন প্রতিনিধিঃ চরফ্যাশন চলতি মৌসুমে তরমুজের বাম্পার ফলন দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যে  উপজেলায় ২১টি ইউনিয়নে আবাদ হয়েছে এ বছর তরমুজ ১২ হাজার ৫৬০ হেক্টর জমিতে চাষাবাদ করা হয়েছে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি আবাদ করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত বড় ধরনের কোন প্রাকৃতিক বিপর্যয় অথবা তেমন শিলাবৃষ্টি না হওয়ায় মাঠে তরমুজের অবস্থা বেশ ভালো রয়েছে। জমিতে শোভা পাচ্ছে সবুজ দৃষ্টিনন্দন তরমুজ। ইতিপুর্বে তরমুজ তোলা শুরু হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত যদি আবহাওয়া অনুকূলে থাকে তবে অবশ্যই এ অঞ্চলে তরমুজের বাম্পার ফলন কৃষক সুবিধা পাবে বলে কৃষি বিভাগ জানায়।

চরফ্যাশন উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা আবু হাছনাইন বলেন, তরমুজে সাধারণত ধানের চেয়ে ৪ থেকে ৫ গুণ লাভ বেশি হয়। এজন্য অনেক কৃষক তরমুজ আবাদে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। কোন কোন কৃষক তরমুজ বিক্রিও শুরু করেছেন। প্রথম দিকে তারা বেশ ভালো দাম পাচ্ছেন। পাতারও ফলের রোগ সমাধানে কৃষি কর্মকর্তারা সব ধরনের পরামর্শ সেবা দিয়ে আসছেন কৃষকদের। যদি আর ১৫ থেকে ২০ দিন আবাহওয়া সহায় থাকে তবে তরমুজ বিক্রিতে কোন সমস্যা হবে না। এবছর তরমুজ ১২ হাজার ৫৬০ হেক্টর জমিতে চাষাবাদ করা হয়েছে।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ঠাকুর কৃষ্ণ দাস জানান, গত বছরের ডিসেম্বর মাসের মাঝামাঝি সময়ে এখানে তরমুজ আবাদ শুরু করা হয়। অনেকে তারও আগে আগাম আবাদ করেছে। মূলত তরমুজ ৯০ থেকে ১০০ দিনের মধ্যে ঘরে তোলেন কৃষকরা। বর্তমানে আগাম আবাদ করা তরমুজ বাজারে রয়েছে। এছাড়া অন্যগুলোরও কর্তনের প্রস্ততি চলছে। কেউ কেউ আবার বাজারেও তুলেছেন।
উপ-সহকারী কৃষিকর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান শিপন বলেন, আমার এলাকায় সাধারণত বন্টিক বেরি, সুপার এমপিআর, পাকিজা, ব্লাক ডায়মন্ড, ট্রাফিক্যল ড্রাগন, সুইট জায়েন্ট, ড্রাগন, সুলতান, আনারকলি, বিগ ফ্যামিলি জাতের তরমুজ আবাদ বেশি করা হয়। পাশাপাশি এবারই নতুন উন্নত জাত হানিকুইন ও লেনফাই জাতের আবাদ করা হয়েছে। তিনি বলেন, হলুদ রঙ্গা এ তরমুজ অত্যন্ত সু-মিষ্ট হওয়ায় কেজি হিসেবে এ তরমুজ বিক্রি হচ্ছে। একেকটি তরমুজ ৭ থেকে ৮ কেজি ওজনের হয়। প্রতি কেজি ৬০ টাকা দরে বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে।

নুরাবাদের আহম্মদপুর গ্রামের তরমুজ চাষি আবুল কালাম জানান, গত বছর মৌসুমের প্রথম দিকে বৃষ্টিপাত হওয়ায় তরমুজের ফলন আশানুরূপ হয়নি। ফলে অনেক কৃষককে গুনতে হয়েছে লোকসান। এবছর আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় বেশি তরমুজের আবাদ হয়েছে। তাই আশা করা যাচ্ছে লোকসান পুষিয়ে লাভবান হবেন কৃষকরা।

উপজেলা সদরের মজিবনগর ইউনিয়নের চরমোতাহার গ্রামের বাসিন্দা কবির হোসেন জানান, তারা প্রায় দেড় একর জমিতে এবছর তরমুজের আবাদ করেছেন। মাঠ পর্যায়ের কৃষিকর্মকর্তারা তাদের সব ধরনের সেবা দিয়ে আসছেন। বাজারে তরমুজ বিক্রি শুরু হয়েছে।

চরফ্যাশন কৃষি অধিদপ্তরের কৃষিকর্মকর্তা আবু হাছনাইন বলেন, অতি বৃষ্টির চেয়ে তরমুজের বেশি ক্ষতি হয় শিলাবৃষ্টিতে। তাই শিলাবৃষ্টিতে তরমুজের ক্ষেতের উপর পলিথিন দিয়ে ডেকে রাখা পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি। এছাড়া অতিবৃষ্টিতে পানি জমে যাতে গাছের গোড়া পচঁতে না পাড়ে সে জন্য বিশেষ স্প্রের কথা বলেন চরফ্যাশন কৃষিবিভাগের প্রধান এই কর্মকর্তা।

সোমবার দুপুরে তরমুজ বিক্রেতা আমির হোসেন বলেন, আমরা বর্তমানে ৭০/৮০টাকা কেজি তরমুজ বিক্রি করছি। এতে একটি তরমুজ বড় সাইজ ৮/৯ কেজি হয়। এতে বিক্রি নামে সাড়ে ৬শ থেকে ৯টাকার মত। এই বছর সর্বোচ্চ তরমুজ চাষ হয়েছে বিছিন্ন দ্বীপ মজিবনগর ইউনিয়নে।